রিজেন্ট ও জেকেজি কান্ড দেশকে কলঙ্কিত করেছে

রাজধানী

নিজস্ব প্রতিবেদক : করোনাভাইরাস পরীক্ষার নামে ভুয়া রিপোর্ট দিয়ে রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজি গোটা বিশ্বে বাংলাদেশকে কলঙ্কিত করেছে। কারণ এ দুই প্রতিষ্ঠানের ভুয়া রিপোর্টের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এখন বাংলাদেশকে না করছে। বাতিল করছে ফ্লাইট। বিদেশে গেলেও ফেরত পাঠাচ্ছে। প্রায় সব দেশই করোনা সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক করেছে। একমাত্র বাংলাদেশেই কিছু লোক পরীক্ষার নামে আমাদের দেশকে কলঙ্কিত করেছে। সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নিরাপদ খাদ্য ও ভোক্তা অধিকার আন্দোলন, বাংলাদেশ’র আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন।
রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম এবং জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা দম্পতির ভুয়া করোনা রিপোর্টে প্রতারনার শিকার ব্যক্তিদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেয়া, তাদের প্রয়োজনে পুনঃপরীক্ষার ব্যবস্থা ও ভুয়া করোনা রিপোর্ট প্রদান কান্ডে জড়িত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও দুর্নীতিমুক্ত স্বাস্থ্যখাতের নিশ্চিতের দাবিতে এই মানববন্ধন হয়।
আয়োজক সংগঠনের প্রধান নির্বাহী কামরুজ্জামান বাবলুর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পাটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, আয়োজক সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি শহীদুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক নোমান মোশাররফ, প্রচার সম্পাদক মাহমুদুর রহমান খান বাপ্পী, দফতর সম্পাদক আব্দুল আজিজ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক ঈমাম হাসান, নির্বাহী সদস্য নূর মোহাম্মদ ও গিয়াস উদ্দিনসহ বিভিন্ন স্তরের নেতারা বক্তব্য দেন।
কমরেড সাইফুল হক বলেন, সরকারের প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় সাহেদ সাবরিনারা তাদের অপকর্ম করেছে। তারা মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। এভাবে একটা দেশ চলতে পারে না।
তিনি অবিলম্বে পলাতক সাহেদকে গ্রেপ্তার করে অপরাপর দোষীদেরও আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের দাবি করেন।
গোলাম মোস্তফা ভূইয়া বলেন, সাহেদের রিজেন্ট হাসপাতাল ও ডা. সাবরিনা দম্পতির জেকেজি হেলথ কেয়ার ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে নমুনা সংগ্রহ করে কোনো পরীক্ষা না করেই হাজার হাজার নিরীহ মানুষকে করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দিচ্ছে। জেকেজি হেলথ কেয়ার কোনো পরীক্ষা না করেই ১৫ হাজার ৪৬০ জনকে করোনার টেস্টের ভুয়া রিপোর্ট সরবরাহ করেছে।
তিনি বলেন, তাদের এ অপকর্মের দায়ে লাখ লাখ প্রবাসী শ্রমিক ও অভিবাসী আজ কর্মহীন হয়ে পড়ার আশঙ্কার সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে চললে অল্প কিছু দিনের মধ্যেই বাংলাদেশ গোটা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে।
সংগঠনের প্রধান নির্বাহী কামরুজ্জামান বাবলু স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতিবাজদের আইনের আওতায় এনে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
তিনি বলেন, করোনা মহামারী আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে আমাদের দেশের স্বাস্থসেবা কোন পর্যায়ে আছে। এখনই সময় স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়ন করার। অন্যথায় দেশে আরও বড় বিপদের সম্মুখীন হবে।