সাহসীকতার সাথে মাথা উঁচু করে দাড়াতেই হবে

অন্যান্য জীবন-যাপন জীবনী বিবিধ সারাদেশ

কিছু বেপরোয়া মানুষের কারণে নিয়ন্ত্রণহীন করোনা

 

মো. নিজাম উদ্দিন খান নিলু : প্রিয় নড়াইলবাসী, আপনাদের সাথে সমসাময়িক পরিস্থিতি নিয়ে নিজের কিছূ ভাবনা ও মতামত প্রকাশ করতে চাই। ২০২০ সালের শুরু থেকেই মারনঘাতী কোভিড-১৯ নিয়ে অত্যন্ত ভয়াবহ শঙ্কার মাঝে আমাদের জীবন প্রবাহিত করছি।
করোনার রহস্যময় আচরণ, সংক্রমন পদ্ধতি ও আমাদের অসতর্ক বিচরণের কারনে এ ব্যাধি বিচিত্রতার সাথে আমাদের দেহে আক্রমন করে চলছে বিনা বাঁধায়!
কিছূ মানুষ প্রয়জনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা সত্বেও সামান্য কিছু বেপরোয়া মানুষের কারণে করোনার সংক্রমন বর্তমানে প্রায় নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়েছে। সূর্যদয় থেকে সূর্যাস্তের প্রতিটি প্রহর যেন মৃত্যূদূতের সঙ্গে আমাদের সাক্ষাতের পর্বে পরিনত হয়েছে। একের পর এক হারাচ্ছি আমাদের চারপাশের প্রিয়জন, স্বজন, পরিজন ও সহকর্মীদেরকে। হারানোর কস্টানুভূতিও যেন হারাতে বসেছে তার শূণ্যতা বোধের স্বরুপ! শুধুমাত্র সামান্য অসচেতনতার কারণেই একে একে অতি প্রিয়জনদেরকে ছেড়ে দিতে হচ্ছে পরপারের পথে।
সংক্রমন রোধে প্রারাম্ভিক কঠোর লকডাউনসহ বিধি নিষেদের কারণে জনজীবনসহ রাষ্ট্রীয় অর্থনীতিতে নেমে এসেছে ব্যাপক তারতম্য।
যদি এ লকডাউনকে আমরা যথাযথ পদ্ধতিতে অবলম্বন বা অনুসরণ করতাম তবে হয়তো কিছূটা অর্থনৈতিক ক্ষতির বিনিময়ে হলেও আমরা রক্ষা করতে পারতাম আমাদের প্রিয়মুখগুলোর হৃদস্পন্দন। কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত সেটি বাস্তবতায় ফলপ্রসু হয়নি!
সমগ্র বিশ্বের মতো আমাদের দেশে কোভিড-১৯ এর কালো খামচি কাটতে না কাটতেই অবিরাম বর্ষনে নদনদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল এখন পানির নীচে নিমজ্জিত! করোনাত্তোর ঘুরে দাড়াবার অর্জিত শক্তিটুকু এবার প্রকৃতির আরো নির্মমতার স্বীকার হয়ে পানির নীচে তলাতে শুরু করেছে।
প্রকৃতির নিয়মেই পালাক্রমে প্রাকৃতিক দূর্যোগ বিপর্যয় আসবেই, তবুও সব বাঁধাকে অতিক্রম করে আমাদেরকে সাহসীকতার সাথে মাথা উঁচু করে দাড়াতেই হবে।
সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙ্গালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজি্ুর রহমানের সুযোগ্য উত্তরসুরী, বিশ্ব অঙ্গনের রাজৈনতিক বিষ্ময়, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মান্যবর সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চরম এ বিপর্যয়ের মাঝে আশাজাগানিয়া বাতিঘর হয়ে আমাদের পাশে রয়েছেন উৎসাহ যুগিয়ে সঠিক পথে হাঁটতে। তিঁনি করোনার শুরু থেকেই পর্যাপ্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় উদ্যোগ ও যুগসই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে অনড় রয়েছেন।
সময় পেরিয়ে যায়নি, এখনো আমরা ধরতে পারি এ মহাসাগর পাড়ি দেবার নৌকার সঠিক হাল।
আমি নিজেও কখনো হতাশ নই, আপনাদেরকেও হতাশ করা আমার অভিপ্রায় নয়।
আসুন, নিজেদেরকে প্রকৃতির বিবর্তনের এ কঠোর যুদ্ধের একেকজন পরিশ্রমী সৈনিক হিসাবে তৈরী করে মেধা, শক্তি ও সাহসের বর্ম পরে মোকাবিলা করি এ যুদ্ধ।
মহান সৃষ্টিকর্তা আমাদের পাশে আছেন, কাছেই আছেন আমাদেরকে সঠিক পথে বিজয়ী করানোর জন্য।
করোনা আক্রান্ত সকলের আরোগ্য ও মৃত্যুকে আলিঙ্গন করা সকলের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।
সেই সঙ্গে করোনা সংক্রমনের বিরুদ্ধে আমার দেশের যত সাহসী বীরেরা নিজ নিজ অঙ্গনে নিরলস পরিশ্রম করে চলছেন তাদের প্রতি রইলো আন্তরিক শ্রদ্ধা, সালাম ও শুভকামনা।
এবং অতি অবশ্যই গর্বভরে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি নড়াইলের কিংবদন্তী ও জেলার করোনা সমরের দুরন্ত করোনা জয়ী দূরদর্শি অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা (এমপি) মহোদয়ের প্রতি, যাঁর সুদৃঢ় নেতৃত্ব ও সান্নিধ্য আমাদেরকে করেছে মোহনীত, আবেশিত ও কৃতজ্ঞ।
আল্লাহ ভরষা।
জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।