করোনাকালে ন্যাশনাল ব্যাংকের মানবিক প্রকল্প

অর্থনীতি জীবন-যাপন সারাদেশ

দারিদ্র্য মুক্তি প্রকল্পে ৩.৫ শতাংশে ঋণ দেবে ন্যাশনাল ব্যাংক
নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের দারিদ্র্যবিমোচনের জন্য হতদরিদ্রদের ঋণ সুবিধা দিতে ‘দারিদ্র্য মুক্তি’ প্রকল্পের আওতায় মাত্র ৩.৫ শতাংশ সুদে ঋণ দেবে বেসরকারি খাতের ন্যাশনাল ব্যাংক লি.। গতকাল ব্যাংকের বোর্ড সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। গতকাল এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ব্যাংকের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার এই প্রকল্পের আওতা বাড়িয়ে সারা দেশে চালু করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। এ ছাড়া এই প্রকল্পে সুদের হার কমিয়ে ৩.৫ শতাংশ নির্ধারণ করে দেন। এই সিদ্ধান্তের ফলে চলমান করোনা মহামারীতে ন্যাশনাল ব্যাংকের এমন মানবিক প্রকল্প অনন্য উদাহরণ হয়ে থাকবে বলে মনে করেন চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার। ন্যাশনাল ব্যাংকের ৪৩৯তম বোর্ড সভায় ব্যাংকটির পরিচালক রিক হক সিকদার জানান, ‘দারিদ্র্য মুক্তি’ প্রকল্পের আওতায় যেসব মানুষকে ঋণ প্রদান করা হয়েছে তাদের ঋণ ফেরতের হার ৯৮ শতাংশ। বাংলাদেশে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মধ্যে ইসলামী ব্যাংকের পর ন্যাশনাল ব্যাংকের প্রান্তিক এলাকায় সবচেয়ে বেশি শাখা রয়েছে। ফলে আমাদের এই জাতীয় প্রকল্প বাস্তবায়ন করা অত্যন্ত সহজ এবং দেশের মানুষের জন্য কল্যাণকর। বিশেষ করে এই করোনা মহামারীতে যখন দরিদ্র মানুষ সবচেয়ে কষ্টে আছে, তখন এই প্রকল্পের আওতায় দরিদ্র মানুষকে ব্যাংকিং সেবা দিয়ে ক্ষুদ্র ব্যবসা করিয়ে জীবন ধারণের সুযোগ করে দিচ্ছে ন্যাশনাল ব্যাংক।

উল্লেখ্য, ন্যাশনাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার ২০১৫ সালে তার স্বপ্নের ‘দারিদ্র্য মুক্তি’ প্রকল্প চালু করেন। এর আওতায় রাজশাহী ও ময়মনসিংহসহ দেশের কয়েকটি জেলায় দরিদ্র মানুষের স্বাবলম্বী হওয়ার লক্ষ্যে বিনা জামানতে ৫ শতাংশ সুদে ঋণ প্রদান করা হয়। সে সময় অন্য ব্যাংকগুলোতে সাধারণ ঋণে সুদের হার ছিল ১৪ থেকে ১৫ শতাংশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংক দেশের ব্যাংক খাতে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ হারে সুদ প্রদানের সীমা নির্ধারণ করে দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় ন্যাশনাল ব্যাংক এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।