মিথ্যা, দুস্কৃতিকারী, প্রতারকরা হেরে গেল অবশেষে জয় হল চৌকস ওসি রাশেদ

অপরাধ

নিজস্ব প্রতিনিধি : মুক্তিযোদ্ধার সন্তান তিনি বাবার আদর্শ নিয়ে যার পথচলা। জামালপুরের কৃতি সন্তান তিনি। তিনি কেঁদে দিয়ে ছিলেন সেদিন, যে দিন কেন্দুয়া কিছু তথ্যর জন্য গিয়েছিলাম। তিনি বলল বন্ধু তুমিও অবশেষে আমার বিরুদ্ধে বক্তব্য নিতে এসেছো হ্যাঁ বক্তব্য তো নিবাই তুমি সাংবাদিক আমি পুলিশ। পেশাগত কাজে বন্ধুত্ব খোঁজিনি আবার ভাবছি তিনি এমন অপরাধ করতেও পারেনা। আমার চোখের দিকে তাকিয়ে বললেন তিনি বললেন পুলিশের অপরাধ অনেক? চাকুরীটা সম্মানের অনেক কষ্টের বন্ধু বক্তব্য দিব তবে বাহিরে একটু ঘুরে এসো জেনে এসো ওরা কারা, সমাজে গাঁ ডাকা দিয়ে কি করে বেড়াচ্ছে একটি চক্র? আমি রাশেদ তাদের পক্ষে নই আমি আমার পুলিশের নীতির পক্ষে সাধারণ মানুষের পক্ষে থানায় এসে যারা সেবা পাবে তাদের পক্ষে। পুলিশের প্রতি যাদের আস্থা ফিরে আসবে আমি সেই রাশেদ। তুমি বাহিরে যাও প্রশ্ন করো গিয়ে প্রতিটি ইউনিয়নে জনসাধারণ মানুষের কাছে আমি রাশেদ কেমন। হ্যা ভাত খেলে ভাত পরবেই আমি রাশেদ যদি খারাপ হই তবেই তুমি সংবাদ প্রকাশ করো তাহলেই তোমার লেখায় আমার আত্মতৃপ্তি পাবে! প্রশ্ন রেখে ছিল রাশেদ আমার কাছে? অল্প কিছু জেনেই প্রকাশ করেছিলাম রাশেদকে নিয়ে। অনেকেই অনেক কিছু বলে ছিলেন আজ বিপরীত হলো জয়ী হলো ওসি রাশেদ। তবে এবার বেড়িয়ে আসবে নারীবাজ থলের বিড়াল, দালাল একটি চক্র।