পাঠাও চালকের প্রেম

বিনোদন

সুজাউল ইসলাম : মেয়েটির শখ বাইকের পিছনে বসে দিগন্তে ছুটে চলা। লম্বা কেশ বাতাসে উড়িয়ে অজানায় হারিয়ে যাওয়া। কিন্ত রক্ষনশীল ও সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের মেয়ে হওয়ার জন্য মনের সুপ্ত ইচ্ছেকে বালিশ চাপা দিতে হয়। মানুষ তার ইচ্ছের সমান বড় আর সৃস্টিকর্তাও তার ইচ্ছে পূরন করাতে পাঠিয়ে দিল স্বপ্নের রাজকুমার। কিন্ত এই রাজকুমার পঙ্খীরাজ ঘোড়া নিয়ে না এসে নিয়ে এলো মোটর বাইক। বাইক চালানো ছেলেটিও মেয়েটির ঘন কালো চুল দেখে পাগল হলো। ছেলেটি বললো, চলো ঘুরে আসি?
মেয়েটি ইতঃস্ততবোধ করছে। একসময় রাজী হয়ে গেল। উঠে বসলো বাইকের পিছনে। খোলা চুল উড়িয়ে বাইক ছুটলো অজানা গন্তব্যে। দু’জনের সাধ আর ইচ্ছে পূরন হওয়ায় হয়ে গেল প্রেম। দু’জনের প্রেমে কোন ভিলেনের উপস্থিতি না থাকায় প্রেম পূর্নতা পেল। অবশেষে দু’পক্ষের গার্ডিয়ান সম্মতিতে একঘরে প্রবেশ। ফলাফল দুটি ফুল।
দুটি ফুল নিয়ে এখন পাঠাও চালক আর এলোকেশী মেয়েটির যাপিত জীবন।