নড়াইলে ছানোয়ার হত্যা মামলার আসামীদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ

সারাদেশ

মো:রফিকুল ইসলাম : নড়াইল সদর উপজেলার চন্ডিবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ছানোয়ার হোসেন মোল্যা (৭০) হত্যা মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেন,এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবারের সদস্যরা।
রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ কমপ্লেক্স চত্বরে এসব প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হয়।
চন্ডিবরপুর ইউনিয়নবাসী ও আলীগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির উদ্যোগে হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে আলীগঞ্জ বাজার থেকে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে মিছিলটি স্থানীয় সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ স্মৃতি যাদুঘর ও পাঠাগার চত্বরে শেষ হয়।
এসময় কয়েকশত নারী-পুরুষ সহ বিভিন্ন বয়সী মানুষের অংশগ্রহণে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধন চলাকালে আসামীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়ে বক্তব্য দেন,চন্ডিবরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান ভূইয়া,সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন,চন্ডিবরপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন,নিহতের ছেলে মাহাবুর রহমান মোল্যা, শিক্ষক নেতা মোঃ কামরুজ্জামান,সমাজ সেবক মোঃ নবীর হোসেন,শাহাদত হোসেন সাবু প্রমুখ।
পরে পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনে আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে মামলার বিচারকার্জ সম্পন্ন করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
উল্লেখ্য চন্ডিবরপুর ইউনিয়নের ভুমুরদিয়া গ্রামের ছানোয়ার হোসেন মোল্যা ৯নং ওয়ার্ড থেকে তিনবার সদস্য নির্বাচিত হন।
গত (১০জানুয়ারী) সকাল সাড়ে ১০টার তিনি চালিতাতলা-কমলাপুর সড়ক দিয়ে নড়াইল শহরে যাচ্ছিলেন।
পথিমধ্যে বোড়াবাদুরিয়া এলাকায় পৌছালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্রকরে আউড়িয়া ইউনিয়নের দত্তপাড়া গ্রামের ৭/৮জন সন্ত্রাসী ছানোয়ার মোল্যার মোটর সাইকেল গতিরোধ করে হাতুড়ীসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রাদি দিয়ে বেপরোয়া ভাবে মারপিট করে মৃত ভেবে ফেলে রেখে যায়।
স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় মুমুর্ষ অবস্থায় ছানোয়ার মোল্যাকে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়া হলে,অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে যশোরের একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
চিকিৎসাধীন অবস্থায় অবস্থার আরো অবনতি ঘটলে গত (১৪ জানুয়ারী) সকালে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।
এঘটনায় নিহতের ছেলে বর্তমান ইউপি সদস্য মাহাবুর মোল্যা বাদী হয়ে ৭জনের নাম উল্লেখ করে সদর থানায় মামলা করেন।
নড়াইল সদর থানার ওসি মোঃ ইলিয়াস হোসেন জানান,আসামীরা পলাতক থাকার কারনে এখনও গ্রেফতার করা যায়নি,তবে আসামীদের গ্রেফতারের জন্য জোর চেষ্টা চলছে।