কুয়েতে এমপি পাপুলের ৪ বছরের জেল

অর্থনীতি আইন ও আদালত আন্তর্জাতিক এইমাত্র

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানবপাচারের দায়ে কুয়েতে আটক থাকা এমপি পাপুলের ৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। আল-কাবাস ও আল-রাইয়ের খবরে বলা হয়েছে, একইসঙ্গে তাকে ৫৩ কোটি টাকা (১৯ লাখ দিনার) জরিমানা করা হয়েছে। দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়া শেষে বৃহস্পতিবার এ রায় দেয়া হয়।

রায়ে পাপুলের কাজে সহায়তাকারী হিসাবে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা মাজেন আল জাররাহসহ কুয়েতি দুই কর্মকর্তাকেও একই দণ্ড দিয়েছে আদালত।

লক্ষ্মীপুর-২ আসনের এই সংসদ সদস্যকে গত ৬ জুন রাতে কুয়েতের মুশরিফ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

পাচারের শিকার পাঁচ বাংলাদেশির অভিযোগের ভিত্তিতে পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচার, অর্থপাচার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের শোষণের অভিযোগ এনেছিল কুয়েতি প্রসিকিউশন।

সেই সময় পাপুলের প্রতিষ্ঠানের একজন হিসাবরক্ষকসহ আরও কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে ঘুষ দেয়া, অর্থ পাচার, মানব পাচার এবং ভিসার অবৈধ লেনদেন করার অভিযোগ আনা হয়।

অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে গত বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর পাপুলের মামলায় আনুষ্ঠানিক বিচার কাজ শুরু হয়। এরপর ২৮ সেপ্টেম্বর মামলার রায় ঘোষণার জন্য তারিখ ঠিক করেন বিচারক।

অপরিচিত শহিদ ইসলাম পাপুল রাজনীতিতে আলোচনায় আসেন ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য হয়ে। নিজে এমপি হওয়ার পর স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের কোটায় পাওয়া সংরক্ষিত একটি আসনে তার স্ত্রী সেলিনা ইসলামকে এমপি করে আনেন।

এরপর পাপুল আবারও আলোচনায় আসেন গত ফেব্রুয়ারিতে যখন কুয়েতের একটি সংবাদপত্রে বাংলাদেশি মানব পাচারকারীদের নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশের জের ধরে।

বাংলাদেশে দুদকও পাপুল, তার স্ত্রী, শ্যালিকা ও মেয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। পাপুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলাম সেই মামলায় জামিনে আছেন।