শ্যামপুর ও মান্ডা খালের সীমানায় থাকা ৫৫ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

রাজধানী

নিজস্ব প্রতিনিধি : ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এর চলমান বর্জ্য অপসারণ ও চ্যানেল পরিষ্কারকরণ কার্যক্রমে আজ শ্যামপুর খালের বউবাজার অংশে খালের সীমানার মধ্যে থাকা অবৈধ ৪০টি স্থাপনা এবং মান্ডা খালের মান্ডা প্রাইমারি স্কুলের পাশের অংশে খালের সীমানার মধ্যে থাকা ১৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

সোমবার শ্যামপুর খালে ডিএসসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ এবং মান্ডা খালে ডিএসসিসির সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন।

শ্যামপুর খাল সংলগ্ন বৌ বাজার এলাকায় খাল পুনরুদ্ধার কাজের অংশ হিসেবে আজ ২য় দিনের মতো উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এ সময় খালের নির্ধারিত সীমানার মধ্যে থাকা ৪০টি বসতঘর ও দোকানপাট ভেঙে দেয়া হয়।

শ্যামপুর খালে সীমানার মধ্যে থাকা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ প্রসঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উদ্দিন বলেন আজ দ্বিতীয় দিনে আমরা খালের সীমানার মধ্যে থাকা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ পরিচালনা করেছি। কিছু জায়গায় অবৈধ দখলকারীরা নিজেরাই তাদের স্থাপনা সরিয়ে নিতে দেখেছি।

ইরফান উদ্দিন আরও বলেন, গত দুই সপ্তাহ যাবত নিয়মিত মাইকিং করা হলেও কিছু অবৈধ দখলদারকে আইন অবজ্ঞা করতে দেখা যায় এবং এর ফলে আজ একজনকে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন, ২০০৯ এর পঞ্চম তফসিলের ৯২ ধারার ৭ ও ৮ উপ-ধারা মোতাবেক অপরাধের জন্য দশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এছাড়াও, অন্য আরেক মামলায় একই আইনের ৩,৭,৮,৩৯ নং ধারায় আরেকজনকে বিশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।

এদিকে, সোমবার কর্পোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত ৭২ নম্বর ওয়ার্ডের মান্ডা খাল ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কমলাপুর খালের (মূলত মান্ডা খাল, ভিন্ন ওয়ার্ডে হওয়াতে ভিন্ন নাৃ ধারণ করেছে) দুই পাশ হতে ১৫টি অবৈধ স্থাপনা, বাড়িঘর উচ্ছেদ করা হয়।

উচ্ছেদ প্রসঙ্গে ডিএসসিসির সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, আজ মান্ডা প্রাইমারি স্কুলের বিপরীত পাশের এলাকায় আমরা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছি। এ সময় খালের সীমানার মধ্যে থাকা পাঁচটি বহুতল ভবনসহ মোট ১৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।