দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিটের অভিযান

অপরাধ আইন ও আদালত

নিজস্ব প্রতিনিধি : কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে গ্রাহকের পাসপোর্ট সেবা প্রদানের নামে ঘুষ দাবি ও হয়রানির অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিটে আগত অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুদক, সজেকা, কুমিল্লা-এর সহকারী পরিচালক রাফী মো: নাজমুস সাদাৎ-এর নেতৃত্বে ১৬-০২-২০২১ খ্রি. এ অভিযান পরিচালিত হয়। দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম সরজমিনে পরিদর্শন পূর্বক অভিযোগের সত্যতা পায়। কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দালালের দৌরাত্ম, পাসপোর্ট প্রদানে বিলম্ব, দালালের মাধ্যমে অতিরিক্ত অর্থের বিনিময়ে দ্রুত পাসপোর্ট প্রদানের প্রাথমিক সত্যতা রয়েছে। এনফোর্সমেন্ট টিম বর্ণিত অভিযোগের বিষয়ে কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে যথাযথ নিয়ম অনুসরণপূর্বক সেবা প্রদানের এবং দালালদের দৌরাত্ম বন্ধের জন্য কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করেছে এবং এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট রেকর্ডপত্র সংগ্রহ করেছে। এক্ষেত্রে কি ধরনের অনিয়ম বা দুর্নীতি সংঘটিত হয়েছে এবং উক্তরূপ অনিয়ম ও দুর্নীতি সাথে উক্ত প্রতিষ্ঠানসহ অন্য কারা জড়িত সে বিষয়টি অধিকতর নিশ্চিত হওয়ার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট দপ্তর সমূহ হতে আরও রেকর্ডপত্র সংগ্রহপূর্বক পরবর্তীতে বিস্তারিত পর্যালোচনা করে কমিশন বরাবর পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিল করবে দুদক টিম।

গ্রাহকের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানে ঘুষ গ্রহণ ও হয়রানির অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিআরটিএ, দিনাজপুর কার্যালয়ে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক, সজেকা, দিনাজপুরের এনফোর্সমেন্ট টিম। দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম সরজমিনে পরিদর্শনপূর্বক এ সকল অভিযোগের সত্যতার প্রমাণযোগ্য কোনো তথ্য প্রমাণ পায়নি। তথাপি বিআরটিএ, দিনাজপুর কার্যালয়ের অফিস সহকারী মো: আলম এর বিরুদ্ধে গ্রাহকের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানে ঘুষ গ্রহণ ও হয়রানির অভিযোগ থাকায় তাকেসহ উক্ত কার্যালয়ের সকলকে এ বিষয়ে সতর্ক করা হয়। এ ক্ষেত্রে কোন অনিয়ম বা দুর্নীতি সংঘটিত হয়েছে কিনা এবং উক্তরূপ অনিয়ম ও দুর্নীতি হলে এর সাথে কারা জড়িত সে বিষয়টি অধিকতর নিশ্চিত হওয়ার লক্ষ্যে পরবর্তীতে তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনাপূর্বক কমিশন বরাবর পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিল করবে দুদক টিম।

এছাড়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি খাদ্য সংরক্ষণের গোডাউন অবৈধভাবে ব্যবহার এবং গোডাউন ভাড়াবাবদ প্রাপ্ত অর্থ আত্মসাৎ, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে রাস্তা নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঘুষের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ ও চা বাগান কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে চা শ্রমিকদের জন্য বরাদ্দকৃত সরকারি ভাতা প্রদানের নামে ঘুষ দাবি ও হয়রানির অভিযোগে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার, হরিণাকুন্ডু, ঝিনাইদহ; সদর উপজেলা, ঝিনাইদহ; হরিপুর, ঠাকুরগাঁও এবং হাতীবান্ধা, লালম্মনিরহা-কে উক্ত বিষয়সমূহ অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পত্র প্রেরণ করে হয়েছে।