হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার

অপরাধ

নিজস্ব প্রতিনিধি : শনিবার ভোর অনুমান ০৪.০০ ঘটিকায় মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক  মোঃ আনোয়ারুল হোসাইন এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় এএসআই(নিঃ)/১২১ আলী হোসেন, কনস্টেবল/১১৯৬ সোহেল রানা, কনস্টেবল/৭৩৭ বাপ্পী দাস-দের নিয়ে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের বিশেষ একটি টিম গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গাজীপুর জেলাধীন টঙ্গী রেলওয়ে স্টেশন এলাকা হতে রেলওয়ে পুলিশের সহযোগীতায় দক্ষিণ সুরমা থানার মামলা নং- ৩০ তারিখ- ২৪/০৬/২০১৯খ্রিঃ ধারা- ৩০২/৩৪ দঃ বিঃ এর পলাতক আসামী সালাউদ্দিন প্রকাশ গাল কাঁটা সালাউদ্দিন প্রকাশ ফুলন মিয়া (২০), পিতা- মৃত আলমাছ মিয়া, সাং- কোনাপাড়া, থানা- ওসমানী নগর, জেলা- সিলেট, পূর্ব পুরুষের বাড়ী ছিল। বর্তমানে ভাসমান-কে গ্রেফতার করেন।
বর্ণিত আসামী একজন ভাঙ্গারির টুকাই। অত্র মামলার ভিকটিম জসিম (২৫) তার সহযোগী ভাঙ্গারি টুকাই ছিল। তারা একত্রে সারাদিন ভাঙ্গারি টুকাইয়া কদমতলী এলাকাধীন হাবিব মিয়ার ভাঙ্গারি দোকানে মালামাল বিক্রি করত। প্রতিদিনের ন্যায় গত- ২৪/০৬/২০১৯খ্রি. সারাদিন ভাঙ্গারি কুড়াইয়া বিকাল বেলা হাবিব মিয়ার দোকানে বিক্রি করে। বিক্রয় লদ্ধ অর্থ নিয়ে ভিকটিম জসিম, চিকন আলী, ছেনু মিয়া, বর্ণিত আসামী কদমতলী এলাকায় হোটেলে রাতের খাবার খায়। খাবার খাওয়া শেষে বর্ণিত আসামী ভাঙ্গারি বিক্রয়ের ৪,৭০০/- টাকার ভাগ তাকে দেওয়ার জন্য বললে, ভিকটিম জসিম, চিকন আলী, ছেনু মিয়া টাকা দিতে অস্বীকার করে তাকে মারপিট করে। এক পর্যায়ে বর্ণিত আসামী পার্শ্ববর্তী একটি ভাসমান দোকান হতে একটি ধাড়ালো চাকু ক্রয় করে। চাকু দেখে ভিকটিমসহ অপর ০২ জন গত ২৪/০৬/২০১৯খ্রি. অনুমান ২০:৩০ ঘটিকার সময় তাকে আবারও মারধর করে রেলওয়ে স্টেশনের সম্মুখের মেহগুনি বাগানের ভিতরের দিকে মেরে ফেলার কথা বলে ধরে নেওয়ার সময় বর্ণিত আসামী ভিকটিম জসিম-এর পেটে চাকু দিয়া আঘাত করে। রক্ত দেখে চিকন আলী ও ছেনু মিয়া দৌড় দেয়। বর্ণিত আসামী ও দৌড়ে পলাতক হয়। ভিকটিম জসিম কে স্থানীয় লোকজন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় জসিম ২৫/০৬/২০১৯খ্রি. রাত্র ০১:২০ ঘটিকায় মারা যায়।
অতঃপর শনিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) মোঃ আনোয়ারুল হোসাইন বর্ণিত আসামীকে বিজ্ঞ চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে; আসামী সালাউদ্দিন প্রকাশ গাল কাঁটা সালাউদ্দিন প্রকাশ ফুলন মিয়া (২০) মামলার ঘটনার বিষয়ে স্বেচ্ছায় স্ব-প্রনোদিত হয়ে ফৌঃ কাঃবিঃ ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে এবং বিজ্ঞ আদালত আসামীকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।