গ্রাহকের দুয়ারে যাবে ডিপিডিসি

অর্থনীতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভ্রাম্যমাণ বিদ্যুৎ সেবা দিতে যাচ্ছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এই সেবা চালু করতে যাচ্ছে বিতরণ কোম্পানিটি। ডিপিডিসির মোট ৩৬টি বিতরণ জোনের প্রত্যেকটিতে একদিন করে এই সেবা দেওয়া হবে। প্রতিদিন তিনটি করে এলাকায় এই সেবা দিতে তিনটি মিনি ট্রাক নামানো হবে। সেখানে গেলেই গ্রাহক পাবেন তাৎক্ষণিক সেবা।
ভ্রাম্যমাণ বিদ্যুৎ সেবার এই চিন্তা প্রথম শুরু করেছিল পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড। দেশের দক্ষিণ পশ্চিমের জেলা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় একজন বিদ্যুৎকর্মী নিজ উদ্যোগে ভ্যান নিয়ে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মাত্র ৫ মিনিটে বিদ্যুৎ সংযোগ লাগিয়ে দেওয়ার কাজটি শুরু করেছিলেন। দেশব্যাপী এই উদ্যোগ প্রশংসা কুড়ালে তার ডাক পড়ে ঢাকাতে। খোদ বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ তার সঙ্গে দেখা করে এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন। এরপর সারাদেশে আলোর ফেরিওয়ালা নামে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কাজ শুরু করেছিল আরইবি।
একটু দেরিতে হলেও শহরে এই সেবার দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হলো। যদিও প্রাথমিকভাবে ১২ দিন দেওয়া হবে এই সেবা। তবে সাড়া পেলে পরে তা আরও বাড়ানো হতে পারে বলে ডিপিডিসি জানায়। হোক না অল্প কিছু সময়ের জন্য তারপরও এই উদ্যোগে মানুষের ব্যাপক সহায়তা পাওয়া যাবে বলে আশা করছে ডিপিডিসি কর্তৃপক্ষ।
প্রতিষ্ঠানটির একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানান, মোট ১২টি ভ্যান নামানো হবে। প্রতিদিন তিনটি এলাকাতে এই সেবা দেওয়া হবে। একটি ভ্যান একটি বিতরণ জোনে সেবা নিয়ে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরবে। আগামীকাল আনুষ্ঠানিকভাবে এই ট্রাকের উদ্বোধন করা হবে।
কী কী সেবা পাওয়া যাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে দেওয়া সম্ভব এমন সব ধরণের সেবা থাকবে। মানুষ নতুন সংযোগের আবেদন করলে আবেদন যাচাই-বাছাই করে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আবার কোনও কোনও ক্ষেত্রে কারও অভিযোগ থাকলে সেগুলোর সুরাহা করা হবে। একইসঙ্গে ভেন্ডিং মেশিন থাকবে। মানুষ চাইলে এখান থেকে প্রিপেইড মিটারে রিচার্জ করতে পারবেন।
রাজধানী ঢাকার বিস্তীর্ণ এলাকার বাইরেও নারায়ণগঞ্জে একটি এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণ করছে ডিপিডিসি। কোম্পানিটির মোট গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ১৪ লাখ। দেশের আরইবির পর ডিপিডিসিই সব চাইতে বেশি বিদ্যুৎ বিতরণ করে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান বলেন, আমরা ৩৬টি জোনে এই সেবা দেওয়া হবে। শুক্রবার বাদ দিয়ে মোট ১২দিন এই সেবা দেওয়া হবে। মুজিববর্ষকে লক্ষ্য রেখে যে সেবাগুলো আমরা দিয়ে থাকি তা তো দেবোই একইসঙ্গে রজনগণকে বিদ্যুতের কারণে অগ্নি দুর্ঘটনা ঘটে সে বিষয়ে সচেতন করা হবে। নতুন সংযোগ, লোড বৃদ্ধি, মিটার পরিবর্তন, ভেন্ডিং, ভুল সংশোধনসহ সব ধরণের সেবা দেওয়া হবে। অনেক কাজ হয়তো একদিনে করা যাবে না। সে কাজগুলো যতদ্রুত সম্ভব করে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।