ইস্যু‌টি ধর্মীয় নয়; মে‌য়ে‌টি নাবা‌লিকা; তাই, আদাল‌তের নি‌র্দে‌শে তা‌কে পিতামাতার কা‌ছে ফেরত দেয়া হয়

অপরাধ আইন ও আদালত

নিজস্ব প্রতিনিধি : গত ১৮ এপ্রিল ২০২১ জিএমপি’র সদর থানা মামলা নং ১৬ ধারা ৭/৩০ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০৩ মতে রুজু হয়। যেখানে বাদী শংকর চন্দ্র মন্ডল অভিযোগ করেন যে, ১২ এপ্রিল তারিখ তার মেয়ে শ্রাবন্তী রানী মন্ডলকে মোঃ কামরুল হোসেন তার এক সহযোগীসহ অপহরন করে নিয়ে যায়। মামলাটি তদন্তের পর্যায়ে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে ভোলা জেলার দৌলতখান থানার দিদারুল্লাহ গ্রামে ভিকটিমের অবস্থান নিশ্চিত করা হয়।

অতঃপর সদর থানার একটি টিম কর্তৃক গত ২৩ এপ্রিল তারিখে জনৈক আবুল কালামের বাড়ি হতে ভিকটিম শ্রাবন্তীকে উদ্ধার পূর্বক বিজ্ঞ আদালতে সােপর্দ করা হয়। ভিকটিম নাবালিকা হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত তার আইনগত অভিভাবক পিতার জিম্মায় হস্তান্তর করে। তদন্তকালে জানা যায় যে, অভিযুক্ত নীলেরপাড়া একটি ফ্যাক্টরীতে কাজ করাকালীন তাদের প্রেমের সম্পর্ক এবং এ কারণেই ভিকটিম গত ১২ এপ্রিল তার সাথে ভোলা চলে যায়।

উল্লেখ্য জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী ভিকটিম শ্রাবন্তী এর জন্ম তারিখ ০৫/০২/২০০৬ অর্থাৎ বয়স ১৫ বছর ২ মাস। শিশু আইন ২০১৩ এর ধারা ৪ অনুযায়ী বয়স ১৮ বছরের কম হওয়ায় সে শিশু/নাবালিকা।
উক্ত বিষয়টি একটি কুচক্রী মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করছে, সকলকে সচেতন থাকতে অনুরোধ করা যাচ্ছে।