নড়াইলে যুবককে কুপিয়ে আহতের ঘটনায় সাবেক পৌর মেয়রকে আসামি করে মামলা

সারাদেশ

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইল পৌর এলাকার ভাদুলীডাঙ্গা নামক স্থানে প্রতীক বিশ্বাস সাধন (৩৫) নামের এক যুবককে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সাবেক পৌর মেয়র ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী খান মো: কবির হোসেন ও ভওয়াখালি এলাকার মনিরুল হকের ছেলে শাহিন উল হক শাওনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ২৩ এপ্রিল নড়াইল সদর থানায় এই মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় খান মো: কবির হোসেনকে আসামি করায় তার স্বজনরা দাবি করেছেন এটি মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাকে আসামি করা হয়েছে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বুধবার (২১ এপ্রিল) দিনগত রাত ৮টার দিকে পৌর এলাকার নড়াইল গ্রামের প্রল্লাদ বিশ্বাসের ছেলে প্রতীক বিশ্বাস সাধন তার ফার্মের কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম মুন্নার সাথে মোটরসাইকেলে করে যায়। পথিমধ্যে ভাদুলীডাঙ্গা গ্রামের বউবাজার নামক স্থান থেকে ঐ গ্রামের তোফায়েল শিকদারের বাড়িতে অবস্থিত নিজস্ব ব্যবসায়িক অফিসে যাওয়ার সময় মন্দিরের পশ্চিমে শ্যামলের বাড়ির উত্তর পার্শ্বে পৌঁছালে দুবৃর্ত্তরা তাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। সাধনের ডান হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে দুবৃর্ত্তরা। এ সময় তরিকুল ইসলাম মুন্নাকেও মারপিট করে তারা। তাদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে সাধনকে উদ্ধার করে নড়াইল সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে যশোর পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঘটনার পর বুধবার (২১ এপ্রিল) রাতে শাহিন উল হক শাওনকে আটক করে পুলিশ। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে সাধনকে কুপিয়ে আহতের ঘটনার প্রকৃত মোটিভ আড়াল করতে নড়াইল পৌরসভার সাবেক মেয়র ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী খান মো: কবির হোসেনকে আসামি করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন তার স্ত্রী ইউসাই আরাফাত। তিনি আজকের দেশকে জানান, তার স্বামীর ব্যবসায়িক উন্নতিতে এবং জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়ে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এ মামলায় তাকে জড়ানো হয়েছে।
ঘটনাস্থল সংলগ্ন এলাকায় পুলিশের সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনার সঙ্গে তার স্বামীর জড়িত না থাকার সত্যতা বেরিয়ে আসবে দাবী করেন তিনি। ঐ ঘটনার দিন (বুধবার) তার স্বামী খান মো: কবির হোসেন বিকেল ৫:৪৯ মিনিটের সময় ভাদুলীডাঙ্গাস্থ নিজ বাসভবনে চলে আসেন। ঐ দিনগত রাতে তিনি বাড়ির বাইরে কোথাও যান নি। তার বাড়ির সিসি ক্যামেরায় এর প্রমাণ আছে। পরীক্ষা করলে বিষয়টির সত্যতা পাওয়া যাবে বলে আরও জানান তিনি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঘটনাস্থলের পাশ্ব¦বর্তী দোকাদার ও বাসিন্দারা জানান, সাধনকে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা কোপানোর পর তার আত্মচিৎকারে আমরা ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। পরে তাকে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় নিরপরাধ কোন ব্যক্তিকে না জড়ানোর জন্য পুলিশের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তারা। ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী বাসিন্দা মো: সজিব হোসেন বিশ্বাস জানান, সাবেক পৌর মেয়র ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক খান মো: কবির হোসেনকে এ মামলায় আসামি করায় এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: ইলিয়াস হোসেন জানান, পুলিশ মামলাটির তদন্ত শুরু করেছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।