ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ২২ তম সভা অনুষ্ঠিত

বানিজ্য

নিজস্ব প্রতিনিধি : বৃহস্পতিবার ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষায় নিয়োজিত সর্বোচ্চ ফোরাম জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ২২ তম সভা জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় । সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় বাণিজ্য মন্ত্রী জনাব টিপু মুনশি এমপি। ২৯ সদস্য বিশিষ্ট পরিষদের সভায় উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দিন, এফবিসিসিআই এর সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন, কনজুমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর সভাপতি গোলাম রহমান, বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও বীমা ব্যক্তিত্ব শেখ কবির হোসেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপ-উপাচার্য নাসরিন আহমদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কাজী আকরাম উদ্দীন আহমেদ, মিসেস প্রীতি চক্রবর্তী, মিসেস মনোয়ারা হাকিম আলী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জনাব ফেরদৌস আহমেদ, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান, জাতীয় শ্রমিক লীগ সভাপতি, বাংলাদেশ কৃষক লীগ সভাপতি, জনপ্রশাসনে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন সরকারের সাবেক সচিব মোঃ আবদুল মালেকসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দপ্তরের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ সভায় জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে সংযুক্ত হয়ে অংশগ্রহন করেন। সভাটি সঞ্চালনা করেন পরিষদের সচিব ও জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা।
সভাপতি মহোদয় সূচনা বক্তব্যে সংযুক্ত সকলকে স্বাগত জানানোসহ করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট মহামারীকালে ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষা, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, বাজারজাতকরণ ও দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখতে নিরলস কাজ করার জন্য জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সকল স্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীকে ধন্যবাদ জানান এবং কাজের ধারাবাহিকতা অব্যহত রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন।
সভায় জানানো হয় যে অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠার পর থেকে ৩০ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত সময়ে ইউনিয়ন, উপজেলা , জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে বাজার অভিযান পরিচালনা করে ১০,০৯৩৮ টি প্রতিষ্ঠানকে দণ্ডিত করে ৭০,২৫,৬৯,৪৪২/- জরিমানা আদায় করা হয়েছে এবং একই সময়ে দাপ্তরিকভাবে প্রাপ্ত অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ৬৮২১ টি প্রতিষ্ঠানকে ৪,৭৫,৭৯,৪০৮/- জরিমানা করা হয়। সভায় আরো জানানো হয় যে, দাপ্তরিকভাবে নিষ্পত্তিকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রণোদনা হিসেবে ৬৭৩৩ জন অভিযোগকারীকে ১,১৭,২৪,১০২/- প্রদান করা হয়। এছাড়াও অধিদপ্তর গৃহীত সচেতনতামূলক কার্যক্রম, ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষায় ডিজিটাল সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি, বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস উদযাপন এবং বিশেষ সেবা সপ্তাহ উপলক্ষ্যে গৃহীত কার্যক্রমসমূহ সভায় উপস্থাপন করা হয়। ভোজ্য তেল ও লবণের পুষ্টিমান নিশ্চিতকরণে বাজার তদারকি কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ, স্টেকহোল্ডার সভা অনুষ্ঠান ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম গতিশীল করার লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক বেসরকারী সংস্থা GAIN (Global Alliance for Improved Nutrition) এর মধ্যে সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে মর্মেও সভার গোচরিভূত করা হয়।
জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে সভায় সংযুক্ত সম্মানিত সদস্যবৃন্দ জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালিত কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন। বিশেষভাবে কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও সরকারী সাধারণ এবং সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখা এবং দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখাসহ ভোক্তা ও ব্যবসায়ী বান্ধব বাজার ব্যবস্থা গঠনে কার্যকর ভূমিকা রাখায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দিন পুনর্গঠিত কমিটির সদস্যবৃন্দ সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহন করায় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান। একইসাথে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর পরিচালিত কার্যক্রমের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান।