ঢাকার দুই মেয়র বললেন জলাবদ্ধতা নেই

রাজধানী

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীতে মঙ্গলবার নগরবাসী জলাবদ্ধতায় চরম ভোগান্তি পোহালেও সেটি নজরে আসেনি ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের মেয়রের। তাদের দুইজনেরই দাবি রাজধানীর কোথাও জলাবদ্ধতা হয়নি। কেউ ভোগান্তিতেও পরেনি।

আজ রাজধানীর মোহাম্মদপুর ইকবাল রোডে উদয়াচল পার্ক ও খেলার মাঠে দশ দিনব্যাপী মশক নিধনে চিরুনী অভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘সাধারণত কোনো স্থানে তিন ঘণ্টার অধিক পানি জমে থাকাকে জলাবদ্ধতা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। আজকের (মঙ্গলবার) বৃষ্টিতে আমরা ৩ ঘণ্টার মধ্যে প্রায় শতভাগ পানি নিষ্কাষণ করতে সক্ষম হয়েছি। ভবিষ্যতে আমাদের লক্ষ হলো ১ ঘণ্টার মধ্যে বৃষ্টির পানি নিষ্কাষণ করা।’

অতীতের মতো ঢাকাবাসীকে আজ কোথাও কোমর পানি বা গলা পানিতে নাজেহাল হতে হয়নি এমন দাবিও করেন মেয়র আতিকুল।তিনি বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি, আমাদের কার্যক্রমের পাশাপাশি পানি উন্নয়ন বোর্ডের সুইস গেটগুলো দ্রুত আমাদের কাছে হস্তান্তর করা হোক। তা এখনো হয়নি। এছাড়া ডিএনডি বাঁধ, হাতিরঝিল প্রকল্প, মেট্রোরেলের কার্যক্রমের ফলে জলাবদ্ধতার সম্পূর্ণ সমাধান এখন পর্যন্ত দেয়া সম্ভব না হলেও অতীতের মতো ঢাকাবাসীকে কোথাও জলজটে নাজেহাল হতে হয়নি।’

তবে তিনি আজকের বৃষ্টিতে যেসব জায়গায় জলজট সৃষ্টি হয়েছে সেসব স্থানকে পরবর্তী কার্যক্রমে প্রাধিকার দেবেন এবং আগামী ২ বছরের মধ্যে জলাবদ্ধতাকে একটি সহনীয় মাত্রায় আনতে সক্ষম হবেন বলে বিশ্বাস করেন।

অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসও দাবি করেছেন, অতীতের মতো ঢাকাবাসীকে কোথাও জলজটে নাজেহাল হতে হয়নি।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে ডিএসসিসি মেয়র বলেন, আজ (মঙ্গলবার) সকাল ৬টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত এই ৩ ঘণ্টায় ৮৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। আমরা লক্ষ্য করেছি, কিছু জায়গায় জলজট হলেও এর পরিমাণ ও স্থান সংখ্যা অনেক কম। সকাল থেকে আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঠ পর্যায়ে তৎপরতার কারণে বৃষ্টির পানি দ্রুততার সঙ্গে নেমে যায়। সেজন্য আমি আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানাই।