সরিষাবাড়ীতে উত্ত্যক্ত প্রতিবাদকারীকে ঘুষি মেরে দাঁত ফেলে দেয়ার অভিযোগ

সারাদেশ

জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে উত্ত্যক্ত প্রতিবাদ কারীকে ঘুষি মেরে দুই দাঁত ফেলে দেয়ার অভিযোগ তুলেছেন নারী উত্ত্যক্তকারীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ৯ জুন বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সরিষাবাড়ী পৌরসভার শিমলা বাজার পাবনা পট্টিতে মুরছালিন ইসলাম( শিহাব) এক নারীকে উত্ত্যক্ত করার সময় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা ফিরাতে গিয়ে সাজ্জাদ হোসেন লালন ও শহিদুল ইসলাম নামে দু জন কে মারপিটের শিকার হয়েছেন উত্ত্যক্তকারীর হাতে। প্রতিবাদকারী শিপন আনোয়ার(৫৮) কে সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে সরিষাবাড়ী পৌরসভার শিমলা বাজার (পাবনা পট্টি) মহল্লার মৃত দেলখোশ মিয়ার ছেলে শিপন আনোয়ার বাদী হয়ে শিমলা বাজার রেলওয়ে লোকোশেড কলোনী মহল্লার মুরছালীন ইসলাম( শিহাব) কে প্রধান বিবাদী করে সরিষাবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরে সরিষাবাড়ী থানার এস আই আরিফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা বুধবার রাত ১০ টার দিকে মুরছালিন ইসলাম (শিহাব) এর বাসা থেকে তাকে আটক করে । উত্ত্যক্তকারী প্রভাবশালী হওয়ায় এক সমঝোতায় বৃহস্পতিবার ভোর ৫ টার দিকে মুরছালীন ইসলাম (শিহাব) কে ৬ /৭ ঘণ্টা থানায় আটকের পর মুক্তি দেয় সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ। তবে অভিযোগকারীর পরিবারের সদস্য সাজ্জাদ হোসেন লালন সাংবাদিকদের জানান, আমাদের লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হলেও তা আমলে না নিয়ে মুরছালীন ইসলাম( শিহাব) জামালপুর জজ কোর্টে চাকুরী করে বলে থানা থেকে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আমাদেরকে নানা ধরনের হুমকি ধামকী দিচ্ছে মুরছালীন ইসলাম( শিহাব)। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।
জানতে চাইলে সরিষাবাড়ী থানার এস আই আরিফুল ইসলাম জানান, মুরছালীন ইসলাম শিহাব এর বিরুদ্ধে থানায় দেয়া অভিযোগ বাদী পক্ষ প্রত্যাহার করায় বাদী-বিবাদী’র মাঝে এক সমঝোতায় মুরছালীন ইসলাম (শিহাব) কে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর রকিবুল হক জানান, মুরছালীন ইসলাম (শিহাব) এর বিরুদ্ধে অভিযোগ কারী থানায় কোন অভিযোগ দিবে না মর্মে স্বীকারোক্তী প্রদান করায় উভয় পক্ষের মাঝে সমঝোতা মোতাবেক মুরছালীন ইসলাম শিহাব কে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।