পাপুলের স্ত্রী-কন্যার জামিন বাতিল চেয়েছে দুদক

অপরাধ আইন ও আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক : অর্থ ও মানবপাচারের অপরাধে চার বছরের কারাদ- পেয়ে কুয়েতে কারাগারে আছেন লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র এমপি কাজী শহীদুল ইসলাম পাপুল। এদিকে পাপুলের স্ত্রী এমপি সেলিনা ইসলামও মেয়ে ওয়াফা ইসলামকে ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজের দেওয়া জামিন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছে দুদক।
সোমবার এ আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে মর্মে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে জানানো হয়েছে। আদালতে দুদকের পক্ষে থাকবেন মো. খুরশীদ আলম খান ও রাষ্ট্রপক্ষে থাকছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ. কে. এম আমিন উদ্দিন। দুদকের মামলায় গত বছরের ২৬ নভেম্বর পাপুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলাম হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন। সে বছরের ২২ ডিসেম্বর বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের হাইকোর্ট বেঞ্চ তাদের জামিন নামঞ্জুর করে ২৮ ডিসেম্বরের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন। আত্মসমর্পণের পর তাদের ২৭ ডিসেম্বর জামিন দেন ঢাকার মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ। ওই জামিন আদেশ বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করে দুদক। গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি লক্ষ্মীপুর-২ আসনের এমপি কাজী শহীদুল ইসলাম পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচারসহ জ্ঞাত আয়বহির্ভূত উপায়ে শত শত কোটি টাকা অর্জন করে হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে পাচারের অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। পরে একই বছরের ১১ নভেম্বর দুদকের উপপরিচালক মো. সালাহউদ্দিন বাদী হয়ে দুই কোটি ৩১ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ ও ১৪৮ কোটি টাকার অর্থপাচারের অভিযোগে শহীদ ইসলাম পাপুল ও তার স্ত্রী সংরক্ষিত আসনের এমপি সেলিনাসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার আসামিরা হলেন পাপুল, তার স্ত্রী সেলিনা ইসলাম, মেয়ে ওয়াফা ইসলাম পাপুলের শ্যালিকা জেসমিন প্রধান।