সরিষাবাড়ীতে আ’লীগ নেতাকে পেটালেন যুবলীগ নেতা

সারাদেশ

মোস্তাফিজুর রহমান,সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি : জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে গরুর হাটের নিয়ন্ত্রণ ও ভাগবাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে পিংনা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিকের নেতৃত্বে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গত সোমবার (১৯ জুলাই) উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের বারইপটল মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল হক সুমুকে মারধর করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেন অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সরিষাবাড়ী উপজেলা যুবলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও পিংনা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল হক সুমুকে গত সোমবার সকাল ১০টার দিকে ফোন করে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে তার অবস্থান জানতে চান। কিছুক্ষণ পর সিদ্দিকের নেতৃত্বে লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রসহ ১৫-২০ জন লোক বারইপটল মোড়ে শামসুল হক সুমুর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেসার্স পারুল এন্টারপ্রাইজে হামলা চালান। হামলাকারীরা শামসুল হক সুমুকে অতর্কিত কিল-ঘুষি ও লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দিয়ে পিটিয়ে আহত করে । এসময় স্থানীয়রা তাদের ধাওয়া করলে ঘটনাস্থল থেকে তারা পালিয়ে যান।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল হক সুমু অভিযোগ করেন, পিংনার গোপালপুর গরুহাটে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এ ঘটনার সূত্রপাত। হাট নিয়ন্ত্রণের জন্য হাসান আলী নায়েব সভাপতি, সিদ্দিক সাধারণ সম্পাদক ও তাকে কোষাধ্যক্ষ করে একটি কমিটি রয়েছে। কিন্তু সিদ্দিক কাউকে তোয়াক্কা না করে বিএনপি সমর্থিতদের নিয়ে এককভাবে পরিচালিত করছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও পিংনা গোপালপুর গরুহাট নিয়ন্ত্রণের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসান আলী নায়েব ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল হক সুমুকে যুবলীগের নেতা পিটিয়েছেন। এটা খুব দুঃখজনক ও কষ্টদায়ক।