নড়াইল বরাসুলা এতিমখানার সুপার কর্তৃক ৫০ লাখ টাকা আত্মসাত

অপরাধ

বিশেষ প্রতিবেদক : দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিটে আগত অভিযোগের প্রেক্ষিতে সারা দেশে আজ মোট ১৩টি অভিযোগের বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ (২টি অভিযান, ১১টি দপ্তরে পত্র প্রেরণ) করেছে দুদক,এ খবর সংশ্লিষ্ট সুত্রের।

নড়াইল জেলার সদর উপজেলার বরাশুলা এতিমখানার সুপার কর্তৃক ১০ বছর যাবত দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারের ৫০ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ সংক্রান্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুদক সজেকা-যশোর এর একটি টিম এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত এতিমখানা সরেজমিনে পরিদর্শনে করে তথ্য সংগ্রহ করে দুদক টিম।

প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী গত জানুয়ারি ২০২১ হতে জুন ২০২১ মেয়াদে উক্ত এতিমখানার ১৮৬ জনের বিপরীতে ৯৩ জনের জন্য সরকারি বরাদ্দ দেয়া হয়। স্থানীয় সমাজসেবা অফিস থেকে বিল প্রদান কালে নীতিমালা অনুসারে ৯৩ জন এর স্থলে ৭০ জন এতিমের বিপরীতে ১১ লক্ষ ১৬ হাজার টাকা বিল পরিশোধ করা হয়েছে।

পরিদর্শনকালে ৬৮ জন এতিম শিশুকে উপস্থিত পাওয়া যায়। প্রাপ্ত তথ্য প্রমাণসমূহ বিস্তারিতভাবে বিশ্লেষক করে কমিশন বরাবর পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিল করবে এনফোর্সমেন্ট টিম।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে টিআর-কাবিখা প্রকল্পের সরকারি বরাদ্দকৃত অর্থ কোন কাজ না করে উত্তোলনপূর্বক আত্মসাতের অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করেছে এনফোর্সমেন্ট টিম। দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় রাজশাহীর একটি টিম সংশ্লিষ্ট কার্যালয় সরজমিনে পরিদর্শন করে।

অনিয়মের প্রেক্ষিতে চেয়ারম্যানকে বরখাস্ত করা হয়েছিল কিন্তু এ ব্যাপারে সুপ্রীম কোর্টে রিট চলমান আছে যা আদাতলের এখতিয়ারভুক্ত। এ প্রসঙ্গে বিস্তারিত প্রতিবেদন কমিশন বরাবর দাখিল করবে এনফোর্সমেন্ট ইউনিট।

এছাড়া, পৌরসভা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে সরকারি খাস জমির পাশে ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণ; ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ওছখালী হতে তমরদ্দি বাজার পর্যন্ত রাস্তা নির্মানে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার; গাড়ি চালক ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ক্রয়কৃত গাড়ির তেল বাহিরে বিক্রয়; মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার কর্তৃপক্ষ-এর বিরুদ্ধে ফ্লাইওভারের সরকারি জায়গা অবৈধভাবে দখল করে টিনশেড তৈরীপূর্বক ভাড়া দেওয়া; সাবেক ব্যবস্থাপক, ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশ লি:-এর বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে ব্যাংক হতে ঋণ গ্রহণপূর্বক আত্মসাৎ; প্রকল্প কমিটির সভাপতি-এর বিরুদ্ধে খাল পুন:খনন প্রকল্পে অনিয়ম; শামীম আহাম্মদ, পরিচালক, নওদাবশ এতিমখানা ও বৃদ্ধাশ্রম, নাগেশ্বরী, কুড়িগ্রাম এর বিরুদ্ধে ভুয়া এতিম ও বৃদ্ধদের তালিকা তৈরিপূর্বক সরকারি অর্থ আত্মসাৎ, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হাটখােলা হতে ডাক্তারপাড়া পর্যন্ত বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাৎ, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে জালিয়াতির মাধ্যমে নিয়ােগ প্রদান; দলিল লেখক-এর বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে অন্যের জমি দখলের অভিযােগের প্রেক্ষিতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক, শেরপুর; প্রধান প্রকৌশলী, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর; প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন; প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন; প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড; উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, গােবিন্দগঞ্জ, গাইবান্ধা; নাগেশ্বরী, কুড়িগ্রাম; সিংগাইর, মানিকগঞ্জ; জেলা শিক্ষা অফিসার, সিলেট; সাব-রেজিস্ট্রার, ধর্মপাশা, সুনামগঞ্জ বরাবর পত্র প্রেরণ করেছে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট।