বর্ণিল আতশবাজি আর ফানুস উড়িয়ে ২০২১ বরণ

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঘড়ির কাঁটায় রাত ১২টা ১ মিনিট হওয়ার অপেক্ষা যেন ছিলো না কারও। তার আগে থেকেই শুরু হয় আকাশে আলোর ঝলকানি, থেমে থেমে পটকার আওয়াজ আর ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ বলে চিৎকার।

বন্ধু-বান্ধব, প্রিয়জন এবং পরিবার নিয়ে অন্যরকম এক আনন্দে মেতে উঠেছিলেন সবাই। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এই উদযাপন সীমাবদ্ধ থাকে চার দেয়ালে আর বাড়ির ছাদে।

বছরের প্রথম প্রহরটিতে রাজধানীর আকাশ ছেয়ে যায় ফানুস আর বিভিন্ন রঙের আতশবাজিতে। ঘড়ির কাটা ১২ এর ঘর ছুঁতেই তাতে লেগে যায় উচ্ছলতার ঢেউ।

লাল-সবুজ-হলুদ-কমলা রঙের আতশবাজিতে মাতোয়ারা হয়ে ওঠে নগরের উৎসব প্রিয় মানুষগুলো। আকাশ ছেয়ে যায় বর্ণিল আলোর আলোকছটায়। করোনার কারণে থার্টিফার্স্ট নাইট উদযাপনে কঠোর নিরাপত্তা থাকলেও নতুন বছরকে সবাই স্বাগত জানিয়েছে নিজেদের মতো করে।

এ প্রসঙ্গে রাতে রাজধানীর মিরপুর এলাকার নাজমুল হোসাইন ফানুস ওড়াতে ওড়াতে বলেন, করোনার জন্য তো দীর্ঘদিন থমকে আছে আমাদের জীবন। কোনো উৎসবও সেভাবে নেই। তাই ছোট পরিসরেই বন্ধুরা মিলে বাড়ির ছাদ থেকে ফানুস ওড়ানো আর কিছু আতশবাজির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

কলাবাগান এলাকার বাসিন্দা নাকিব ইয়াহিয়া বলেন, প্রতি বছরই ঘরোয়াভাবে আমরা থার্টি ফাস্ট উদযাপন করি। সবাই মিলে একটু গেট টুগেদারের মতো হয়ে যায়। বাসার ছাদে বারবিকিউ করা হয় , আর গানবাজনা করেই কাটিয়ে দেই আমরা।

 

পুরান ঢাকার বাসিন্দা আসিফ কাজল বলেন, থার্টি ফাস্টে সবাই আনন্দ করে, পটকা ফুটায়, গান বাজানা খাওয়া দাওয়া করে। পুরান ঢাকায় তো অনেকটা উৎসবের মতো থার্টিফাস্ট নাইট।

একই এলাকার বাসিন্দা পিমা বলেন, অন্যবারের তুলনায় এবার সবকিছুই স্বল্প পরিসরে। তবে সবগুলো বাড়ি থেকে একটু একটু করে যেভাবে বর্ষবরণের জন্য আয়োজন করা হয়েছে, তাতে একটা বড় ব্যাপার হয়ে গেছে। অনেকদিন পর এমন আতবাসি আর ফানুসের ওড়াওড়া দেখে ভীষণ ভালো লাগছে। আশা করছি, নতুন বছরটাও অনেক ভালো কাটবে।

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) বছরের শেষ দিনের সূর্যাস্ত যেতেই শুরু হয় নতুন বছরের প্রহর গোনা। অবশেষে এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। শুক্রবার (১ জানুয়ারি) রাতে ঘড়ির কাঁটা ১২টা ছুঁতেই ঘরের কোণায় ঝুলে থাকা ক্যালেন্ডারের সঙ্গে সঙ্গে যেনো বদলে গেলো জীবনের আশা-আকাঙ্ক্ষাও। নতুন এই বছর অফুরান প্রত্যাশা নিয়ে এসেছে সবার কাছে। এই নতুন হোক উত্তরণের, কালের যাত্রায় এগিয়ে চলার। নতুনের আবাহনে জেগে উঠ‍ুক সমগ্র দেশ, বিশ্ব। ২০২১ সাল মানুষের জীবনে বয়ে আনুক সুখ ও সমৃদ্ধি, এমনটাই এখন প্রত্যাশা সবার।