মাঝ পদ্মায় লঞ্চ-তেলবাহী ট্যাংকারের সংঘর্ষ

সারাদেশ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি : দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের মাঝ পদ্মায় দৌলতদিয়াগামী এমভি ফ্লাইং বার্ড ২ নামের একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ ও ওটিসাংহাই-৪ নামের তেলবাহী একটি ট্যাংকারের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে যাত্রীবাহী লঞ্চের ক্ষতি হলেও কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।
শনিবার দুপুর ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
ক্ষতিগ্রস্ত লঞ্চের যাত্রী হারুন অর রশিদ জানান, বরিশাল ক্যান্টনমেন্টে যাওয়ার জন্য তিনি পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়াগামী একটি ওই লঞ্চে ওঠেন। নদী পার হওয়ার সময় একটি ট্যাংক দ্রুতগতিতে এসে তাদের লঞ্চে ধাক্কা মারে। ধাক্কায় অনেকে নদীতে পড়ে যান। তিনি জীবন বাঁচাতে সব পোশাক খুলে ফেলেন এবং সাঁতরে আরেকটি লঞ্চে ওঠেন। সে সময় কে বা কারা তার ব্যাগপত্র নিয়ে গেছে। আর যারা পড়ে গেছেন, অন্যান্য লঞ্চ এসে তাদের উদ্ধার করে।
লঞ্চের সারেং আবুল হোসেন জানান, পাটুরিয়া প্রান্ত থেকে লঞ্চটি দৌলতদিয়া যাচ্ছিল। মাঝ নদী পার হওয়ার পর দুইটি তেলের ট্যাংক পাল্লা দিয়ে যাওয়ার সময় তার লঞ্চে সরাসরি আঘাত করে। এসময় নদীতে কয়েকজন পড়ে গেলেও তারা উঠে আসতে সক্ষম হয়েছেন। তবে লঞ্চের ক্ষতি হয়েছে।
দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট ম্যানেজার মো. নুরুল আনোয়ার মিলন জানান, পাটুরিয়া থেকে প্রায় দেড় শতাধিক যাত্রী নিয়ে দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে আসা এমভি ফ্লাইং বার্ড-২ লঞ্চটি পদ্মানদীর মাঝমাঝি অংশ পার হয়ে আসলে ওটিসাংহাই-৪ নামের একটি তেলবাহী ট্যাংকার সরাসরি লঞ্চে আঘাত করে। এতে লঞ্চে থাকা কয়েকজন যাত্রী নদীতে পড়ে যান। পড়ে যাত্রীরা ফেরি ও অন্যলঞ্চে করে উঠে দৌলতদিয়া প্রান্তে আসেন।
তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো যাত্রী নিখোঁজের খবর পাওয়া যায়নি। তবে লঞ্চের ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া তেলবাহী ট্যাংকারটি মাঝ নদীতে আছে। আল্লাহ সহায় আছেন, তাই বড় ধরণের কোনো দুর্ঘটনা হয়নি।