চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এর চ্যালঞ্জ মোকাবিলায় নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনে জোর দিতে হবে : শ্রম প্রতিমন্ত্রী

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিনিধি : শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এর চ্যালঞ্জ মোকাবিলা এবং রুপকল্প-২০৪১ এর সফল বাস্তবায়নে নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনে বেশি জোর দিতে হবে। সব সেক্টরের কর্মজীবিদের নতুন নতুন প্রযুক্তিতে দক্ষ হতে হবে, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে কোন শ্রমিক যাতে কর্মহীন না হয়।
তিনি আজ বিকেলে মন্ত্রণালয়ের উদ্ভাবনী টিম আয়োজিত চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এবং ইনোভেশন শোকেসিং বিষয়ক দিনব্যাপী এক ভার্চ্যুয়াল কর্মশালার সমাপনী বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, গ্লোবাল ভিলেজ’ এ তথ্য প্রযুক্তির সৃষ্টিশীলতা আমাদের জন্য মূল্যবান সম্পদ। তথ্য প্রযুক্তিতে উন্নত জাতি আগামীর বিশ্বকে নেতৃত্ব দিবে। এই উপলব্ধি থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর নির্বাচনী ইশতেহারে ডিজিটাল বাংলাদেশ ও ভিশন-২০২১ এর রূপরেখা প্রকাশ করে জাতিকে এক নতুন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখান। তাঁর রুপরেখার মূল কথাই ছিল তথ্য প্রযুক্তিই হবে সব কর্মকান্ডের মূল হাতিয়ার। আজ তা বাস্তবতা।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এর রুপকার প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদ এর দেখানো পথে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় অধিকাংশ সেবা ডিজিটাল সেবায় রূপান্তর করেছে। মন্ত্রণালয়ের সকল কার্যক্রম অটোমেশন করা হয়েছে, ই-ফাইলিং এর মাধ্যমে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফাইলের নিস্পত্তি করা হচ্ছে। কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর হতে কল-কারখানার লাইসেন্স প্রদান কার্যক্রম অনলাইনে সম্পন্ন করা হচ্ছে। LIMA নামক Apps-এর মাধ্যমে কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করা হচ্ছে, শ্রমিকদের সুবিধার্থে টোল ফ্রি হটলাইন নম্বর ১৬৩৫৭ চালু করা হয়েছে। শ্রম অধিদপ্তরে Writ Management System, Inventory and Requisition Management System, Online Trade Union Registration System চালু করা হয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় জনগণ তাদের দোরগোড়ায় কম সময়ে, স্বল্প খরচে এবং কম যাতায়াত করেই সন্তুষ্টি সহকারে সেবা পাচ্ছেন।
ডিজিটাল বাংলাদেশের সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে নতুন নতুন উদ্ভাবনীর মাধ্যমে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা এবং শেখ হাসিনার রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়নে শ্রম মন্ত্রণালয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে প্রতিমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
ভার্চ্যুয়াল কর্মশালায় মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আব্দুস সালাম, অতিরিক্ত সচিব ড.রেজাউল হক, সাকিউন নাহার বেগম, জেবুন্নেসা করিম, ড.সেলিনা আকতার, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মো.নাসির উদ্দিন আহমেদ,শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক গৌতম কুমার চক্রবর্তীসহ উদ্ভাবক, মন্ত্রণালয় এর অধীন অধিদপ্তর -সংস্থা সমূহের উদ্ভাবনী টিমের সদস্যগণ অংশ গ্রহণ করেন।